ঢাকা ০৪:০৭ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পটিয়ায় প্রকাশ্যে হত্যার উদ্দেশ্যে যুবক কে কুপিয়েছে সন্ত্রাসী মনির

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:০৯:৪৭ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৬ অগাস্ট ২০২৩ ১২৬ বার পড়া হয়েছে
পটিয়া (চট্রগ্রাম) প্রতিনিধি।।
চট্টগ্রামের পটিয়ায় প্রকাশ্যে এক সিএনজি চালক যুবক কে হত্যার উদ্দেশ্যে কুপিয়ে জখম করার ঘটনা ঘটেছে।
সূত্রে জানা গেছে, পটিয়া থানাধীন  কুসুমপুর ইউনিয়ন ১নং ওয়ার্ড এর আকবর সওদাগর বাড়ির ভাড়াটিয়া আব্দুল মাবুদ ড্রাইভারের ছেলে মোহাম্মদ মিজানকে, একই এলাকার মাহবুবের ছেলে মনির ওরফে ইয়াবা মনির হত্যার উদ্দেশ্যে পরিকল্পিতভাবে প্রকাশ্য দেশীয় অস্ত্রে সুসজ্জিত রামদা ক্রিস,  ছুরি ছাপাতি  দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে।
প্রত্যক্ষর্শীদের তথ্য মতে জানা গেছে, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এ ঘটনা ঘটে। মনির দীর্ঘদিন যাবত এলাকায় কিশোর গ্যাং পরিচালনা করে এলাকায় বিভিন্ন অপরাধ জনিত কর্মকান্ড করে আসছিলো চুরি, ডাকাতি, মাদকদ্রব্য ও ইয়াবা কারবার সহ বিভিন্ন সময়ে চাঁদাবাজীর অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। মানুষের কাছে মনির দীর্ঘ দিন চাঁদা দাবী করে আসছিলো। কেউ  চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে শুরু হয়ে যায় তার উপর অমানুষিক নির্যাতন বেধড়ক মারধর এমনকি ছুরির আঘাত, এসব বিষয়ে কেউ যদি মুখ খোলার চেষ্টা করলে তাকে  প্রাণে মেরে ফেলার হুমকিও দিয়ে থাকে এ কিশোর গ্যাং সন্ত্রাসী মনির।
মঙ্গলবার(১৫ আগষ্ট) সন্ত্রাসী কিশোর গ্যাং মনিরে কাছে সিএনজি ভাড়ার টাকা দাবি করলে ক্ষিপ্ত হয়ে সিএনজি চালক মিজানকে এলো পাথারী কুপিয়ে যখন করে এসময় প্রান বাচাতে মিজান দৌড়ে পালিয়ে গিয়ে পরে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে নিকটস্থ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য প্রেরন করে।
এ ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে ভুক্তভোগী আহত মিজান বলেন, আমাকে পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে হত্যার উদ্দেশ্যে মনির গ্রুপের ৩/৪ জন সদস্য দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে, আমি দৌড়ে পালিয়ে গেলে পরবর্তীতে পেছনে আবারো কিরিছ নিয়ে আমাকে আবার আঘাত করতে আসলে আমি আবার দৌড়ে জান বাচাতে ব্রীজের নিচে গিয়ে মুমূর্ষ হয়ে অচেতন হয়ে পরে যাই।
এরপর পথচারী লোকজন আমাকে হাসপাতালে নিয়ে যায়। জ্ঞান ফিরে আসার পর জানতে পারি আমার বড় ভাই বাদী হয়ে পটিয়া থানায় মনিরকে আসামী করে একটি সাধারণ ডায়েরি করে। মনিরের বিরুদ্ধে অভিযোগটি পার্শ্ববর্তী কালারপুল পুলিশ ফাঁড়ির  সাব ইন্সপেক্টর (এসআই) দুলালের কাছে তদন্তভার দেয়া হয়।
মঙ্গলবার প্রকাশ্যে ঘটে যাওয়া ওই ঘটনার রহস্যজনক কারনে এখনো পর্যন্ত কোন ধরনের আইনি প্রক্রিয়া গ্রহন করা হয়নি।
এদিকে এ ঘটনায় কিশোর গ্যাং সন্ত্রাসী মনিরকে আইনের আওতায় এনে সুষ্ঠু বিচার নিশ্চিত সহ সর্বোচ্চ  শাস্তি দাবি জানিয়েছেন ভুক্তভোগী মিজান ও এলাকাবাসী।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

পটিয়ায় প্রকাশ্যে হত্যার উদ্দেশ্যে যুবক কে কুপিয়েছে সন্ত্রাসী মনির

আপডেট সময় : ১১:০৯:৪৭ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৬ অগাস্ট ২০২৩
পটিয়া (চট্রগ্রাম) প্রতিনিধি।।
চট্টগ্রামের পটিয়ায় প্রকাশ্যে এক সিএনজি চালক যুবক কে হত্যার উদ্দেশ্যে কুপিয়ে জখম করার ঘটনা ঘটেছে।
সূত্রে জানা গেছে, পটিয়া থানাধীন  কুসুমপুর ইউনিয়ন ১নং ওয়ার্ড এর আকবর সওদাগর বাড়ির ভাড়াটিয়া আব্দুল মাবুদ ড্রাইভারের ছেলে মোহাম্মদ মিজানকে, একই এলাকার মাহবুবের ছেলে মনির ওরফে ইয়াবা মনির হত্যার উদ্দেশ্যে পরিকল্পিতভাবে প্রকাশ্য দেশীয় অস্ত্রে সুসজ্জিত রামদা ক্রিস,  ছুরি ছাপাতি  দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে।
প্রত্যক্ষর্শীদের তথ্য মতে জানা গেছে, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এ ঘটনা ঘটে। মনির দীর্ঘদিন যাবত এলাকায় কিশোর গ্যাং পরিচালনা করে এলাকায় বিভিন্ন অপরাধ জনিত কর্মকান্ড করে আসছিলো চুরি, ডাকাতি, মাদকদ্রব্য ও ইয়াবা কারবার সহ বিভিন্ন সময়ে চাঁদাবাজীর অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। মানুষের কাছে মনির দীর্ঘ দিন চাঁদা দাবী করে আসছিলো। কেউ  চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে শুরু হয়ে যায় তার উপর অমানুষিক নির্যাতন বেধড়ক মারধর এমনকি ছুরির আঘাত, এসব বিষয়ে কেউ যদি মুখ খোলার চেষ্টা করলে তাকে  প্রাণে মেরে ফেলার হুমকিও দিয়ে থাকে এ কিশোর গ্যাং সন্ত্রাসী মনির।
মঙ্গলবার(১৫ আগষ্ট) সন্ত্রাসী কিশোর গ্যাং মনিরে কাছে সিএনজি ভাড়ার টাকা দাবি করলে ক্ষিপ্ত হয়ে সিএনজি চালক মিজানকে এলো পাথারী কুপিয়ে যখন করে এসময় প্রান বাচাতে মিজান দৌড়ে পালিয়ে গিয়ে পরে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে নিকটস্থ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য প্রেরন করে।
এ ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে ভুক্তভোগী আহত মিজান বলেন, আমাকে পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে হত্যার উদ্দেশ্যে মনির গ্রুপের ৩/৪ জন সদস্য দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে, আমি দৌড়ে পালিয়ে গেলে পরবর্তীতে পেছনে আবারো কিরিছ নিয়ে আমাকে আবার আঘাত করতে আসলে আমি আবার দৌড়ে জান বাচাতে ব্রীজের নিচে গিয়ে মুমূর্ষ হয়ে অচেতন হয়ে পরে যাই।
এরপর পথচারী লোকজন আমাকে হাসপাতালে নিয়ে যায়। জ্ঞান ফিরে আসার পর জানতে পারি আমার বড় ভাই বাদী হয়ে পটিয়া থানায় মনিরকে আসামী করে একটি সাধারণ ডায়েরি করে। মনিরের বিরুদ্ধে অভিযোগটি পার্শ্ববর্তী কালারপুল পুলিশ ফাঁড়ির  সাব ইন্সপেক্টর (এসআই) দুলালের কাছে তদন্তভার দেয়া হয়।
মঙ্গলবার প্রকাশ্যে ঘটে যাওয়া ওই ঘটনার রহস্যজনক কারনে এখনো পর্যন্ত কোন ধরনের আইনি প্রক্রিয়া গ্রহন করা হয়নি।
এদিকে এ ঘটনায় কিশোর গ্যাং সন্ত্রাসী মনিরকে আইনের আওতায় এনে সুষ্ঠু বিচার নিশ্চিত সহ সর্বোচ্চ  শাস্তি দাবি জানিয়েছেন ভুক্তভোগী মিজান ও এলাকাবাসী।