ঢাকা ০৩:৫৮ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভ্রমণ ভিসায় এসে প্রতারণার ভয়ংকর ফাদঁ,নাইজেরিয়ানসহ গ্রেপ্তার ৪

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৭:১০:২৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ মে ২০২৩ ৫৫ বার পড়া হয়েছে

সমকালীন কাগজ ডেস্ক।।

নাইজেরিয়ান নাগরিক চার্লস ইফেন্ডে উদজুয় ভ্রমণ ভিসা নিয়ে বাংলাদেশে আসেন ২০১৯ সালে।এর কিছুদিন পরই একটি মাদক মামলায় পাসপোর্ট জব্দ করে দেশের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

এরপর থেকে পলাতক অবস্থায় কাপড় কিনে নাইজেরিয়ায় রপ্তানি করে আসছিলেন তিনি। এরও পাশাপাশি ব্যবসার আড়ালে একটি ভয়ংকর প্রতারক চক্র গড়ে তোলেন এই নাইজেরিয়ান। তারই প্ররোচনায় ২০২১ সালে ভ্রমণ ভিসায় বাংলাদেশে এসে কাপড়ের ব্যবসা শুরু করেন আরেক নাইজেরিয়ার নাগরিক ফ্র‍্যাংক কোকো ওবিরক্স। তিনি ছিলেন তার প্রধান সহযোগী।

দুই নাইজেরীয় নাগরিকসহ এ চক্রের চার সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব।

বুধবার(২৪ মে) রাজধানীর বাড্ডা,বসুন্ধরা আবাসিক ও কদমতলীর শামীমবাগ এলাকা থেকে তাদের ২জন সহ সহযোগী আরো ২জনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

বৃহস্পতিবার (২৫ মে) র‍্যাবের মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলনে র‍্যাব-১০’র অধিনায়ক অতিরিক্ত ডিআইজি মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন এসব চাঞ্চল্যকর প্রতারক চক্রের তথ্য জানান। 

তিনি বলেন,তারা নিজেদেরকে একটি উন্নত দেশের ধর্নাঢ ব্যক্তি হিসেবে পরিচয় দিয়ে ব্যবসায়ী ও উচ্চবিত্তদের সাথে বন্ধুত্বের হাত বাড়াত এ সংঘবদ্ধ চক্রটি। এরপর ভুক্তভোগীর অনিচ্ছা সত্ত্বেও সম্পর্ক গভীর করতে নাটক সাজাত তারা।

পরে তারা নিজেরাই কাস্টমস কর্মকর্তা সেজে ভুক্তভোগীকে ফোন করে পার্সেল গ্রহণের জন্য ধাপে ধাপে টাকা নিয়ে আত্মগোপনে চলে যেত।

তিনি আরও জানান, গত ১৭ মে মুন্সীগঞ্জের সিরাজদীখানে এক নারীর ঠিকানায় একটি পার্সেল পাঠায় এ চক্রটি। এরপরদিন হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে কাস্টমস কর্মকর্তা পরিচয়ে প্রতারক চক্রের এক নারী জানায়, তার নামে একটি মূল্যবান বিদেশি পার্সেল বিমানবন্দরে এসেছে। মূল্যবান পার্সেল ডেলিভারি করতে কাস্টমস চার্জ ৬০ হাজার টাকা পরিশোধ করতে হবে। এর পরবর্তীতে ওই একই নারীর কাছ থেকে তিন ধাপে সর্বোমোট ৭৩ হাজার ৩২০ টাকা হাতিয়ে নেয় চক্রটি। পরে তিনি প্রতারণা চক্রের খপ্পরে পরেছেব বুঝতে পেরে ওই নারী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

ভ্রমণ ভিসায় এসে প্রতারণার ভয়ংকর ফাদঁ,নাইজেরিয়ানসহ গ্রেপ্তার ৪

আপডেট সময় : ০৭:১০:২৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ মে ২০২৩

সমকালীন কাগজ ডেস্ক।।

নাইজেরিয়ান নাগরিক চার্লস ইফেন্ডে উদজুয় ভ্রমণ ভিসা নিয়ে বাংলাদেশে আসেন ২০১৯ সালে।এর কিছুদিন পরই একটি মাদক মামলায় পাসপোর্ট জব্দ করে দেশের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

এরপর থেকে পলাতক অবস্থায় কাপড় কিনে নাইজেরিয়ায় রপ্তানি করে আসছিলেন তিনি। এরও পাশাপাশি ব্যবসার আড়ালে একটি ভয়ংকর প্রতারক চক্র গড়ে তোলেন এই নাইজেরিয়ান। তারই প্ররোচনায় ২০২১ সালে ভ্রমণ ভিসায় বাংলাদেশে এসে কাপড়ের ব্যবসা শুরু করেন আরেক নাইজেরিয়ার নাগরিক ফ্র‍্যাংক কোকো ওবিরক্স। তিনি ছিলেন তার প্রধান সহযোগী।

দুই নাইজেরীয় নাগরিকসহ এ চক্রের চার সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব।

বুধবার(২৪ মে) রাজধানীর বাড্ডা,বসুন্ধরা আবাসিক ও কদমতলীর শামীমবাগ এলাকা থেকে তাদের ২জন সহ সহযোগী আরো ২জনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

বৃহস্পতিবার (২৫ মে) র‍্যাবের মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলনে র‍্যাব-১০’র অধিনায়ক অতিরিক্ত ডিআইজি মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন এসব চাঞ্চল্যকর প্রতারক চক্রের তথ্য জানান। 

তিনি বলেন,তারা নিজেদেরকে একটি উন্নত দেশের ধর্নাঢ ব্যক্তি হিসেবে পরিচয় দিয়ে ব্যবসায়ী ও উচ্চবিত্তদের সাথে বন্ধুত্বের হাত বাড়াত এ সংঘবদ্ধ চক্রটি। এরপর ভুক্তভোগীর অনিচ্ছা সত্ত্বেও সম্পর্ক গভীর করতে নাটক সাজাত তারা।

পরে তারা নিজেরাই কাস্টমস কর্মকর্তা সেজে ভুক্তভোগীকে ফোন করে পার্সেল গ্রহণের জন্য ধাপে ধাপে টাকা নিয়ে আত্মগোপনে চলে যেত।

তিনি আরও জানান, গত ১৭ মে মুন্সীগঞ্জের সিরাজদীখানে এক নারীর ঠিকানায় একটি পার্সেল পাঠায় এ চক্রটি। এরপরদিন হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে কাস্টমস কর্মকর্তা পরিচয়ে প্রতারক চক্রের এক নারী জানায়, তার নামে একটি মূল্যবান বিদেশি পার্সেল বিমানবন্দরে এসেছে। মূল্যবান পার্সেল ডেলিভারি করতে কাস্টমস চার্জ ৬০ হাজার টাকা পরিশোধ করতে হবে। এর পরবর্তীতে ওই একই নারীর কাছ থেকে তিন ধাপে সর্বোমোট ৭৩ হাজার ৩২০ টাকা হাতিয়ে নেয় চক্রটি। পরে তিনি প্রতারণা চক্রের খপ্পরে পরেছেব বুঝতে পেরে ওই নারী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।