ঢাকা ০৮:৪৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আল কোরআনের বাণীকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দিতে আপ্রাণ চেষ্টা করবো: সায়েম সোবহান আনভীর

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১০:২৭:০০ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২১ মে ২০২৩ ৬০ বার পড়া হয়েছে

সমকালীন কাগজ ডেস্ক।।

আল কোরআনের বাণী বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে দিতে আপ্রাণ চেষ্টা করা কথা জানালেন বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক।
বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদ মুসল্লি কমিটির প্রধান উপদেষ্টা বসুন্ধরা গ্রুপের কর্ণধার সায়েম সোবহান আনভীর বলেছেন,ইসলাম একটি পবিত্র ধর্ম। ইসলাম শান্তি ও মানবতার ধর্ম হিসেবে সার্বজন স্বীকৃত ও পরিক্ষিত। ইসলাম ধর্মের আদর্শ এবং পবিত্র কোরআনের বাণী বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে দিতে আমি আপ্রাণ চেষ্টা করে যাব।
শনিবার(২০ মে) সন্ধ্যায় রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় দেশের বৃহৎ হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতা‘কুরআনের নূর- বসুন্ধরা গ্রুপ’-এর আয়োজনে সমাপনী অনুষ্ঠানে বক্তব্যকালে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে আয়োজিত এ প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী ও ইসলামিক কনফারেন্সের সভাপতির বক্তব্য প্রদান করেন তিনি। হিফজুল কোরআনের এ প্রতিযোগিতাকে আগামীতে দেশের গন্ডি পেরিয়ে আন্তর্জাতিকীকরণের প্রতিশ্রুতির কথা ব্যক্ত করে তিনি বলেন,আগামীতে আল কোরআনের এই প্রতিযোগিতা আন্তর্জাতিকভাবে বিভিন্ন দেশে অংশ গ্রহণে বাংলাদেশেই অনাড়ম্বর ভাবে আয়োজন করা হবে। যেখানে সারা বিশ্বের সকল দেশের কোরআনের হাফেজগণ অংশগ্রহণ করার সুযোগ পারবেন।

বসুন্ধরার কর্ণধার সায়েম সোবহান আনভীর আরো বলেন,আমি বিশ্বাস করি ইসলামই একমাত্র শান্তির ধর্ম।

ইসলাম মানেই মানবতা। কাজেই আমি যত দিন বেঁচে থাকব,আল কোরআনের বাণীকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দিতে সর্বোচ্চ সফল চেষ্টা করব ইনশাআল্লাহ।’
প্রধান অতিথির বক্তব্যের শুরুতে তিনি পরম করুণাময় মহান আল্লাহ তায়ালার প্রতি শুকরিয়া জ্ঞাপন করেন। দেশ-বিদেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে এ অনুষ্ঠানে আগত অতিথিদের স্বাগত ও বিশেষ ধন্যবাদ জানান।

তিনি বলেন,ভারত ও মিসর থেকে যেসকল মেহমানরা কষ্ট করে এসে আমাদের দেশের এই আয়োজনকে সাফল্য মণ্ডিত কারেছেন, তাদের প্রতি রইলো আমার অন্তরের অন্তস্তল থেকে আন্তরিক কৃতজ্ঞতা ও ভালোবাসা। বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের খতিব সহ চারজন পেশ ইমাম, মুসল্লি কমিটির সদস্যসহ সকল ইসলামিক স্কলার ও বিচারকমণ্ডলীকে অন্তরিক ধন্যবাদ জানাচ্ছি। চট্রগ্রামের বিখ্যাত হাটহাজারী মাদরাসার হজরতসহ দেশের স্বনামধন্য মাদরাসার প্রধান এবং দেড় সহস্রাধিক ইমাম সাহেবদেরকে অনুষ্ঠানে উপস্থিত হওয়ার জন্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি।’
খুদে কোরআানের হাফেজদের কথা আলাদা করে উচ্চারণ করেন সায়েম সোবহান আনভীর বলেন, ‘আমাদের এই পুরো আয়োজনের বিশেষ আকর্ষণ খুদে হাফেজরা।

তাদের সকলপের জন্য আমার ও আমার পরিবারের পক্ষ থেকে প্রাণভরা দোয়া এবং ভালোবাসা রইল। আমি আশা করছি, এ ধরনের আয়োজনের মাধ্যমে আমাদের কোরআনে হাফেজগণ বিশ্বের দরবারে বাংলাদেশের মান আরো উঁচু স্থানে নিয়ে যাবে। তারা নিজেরাও নতুন নতুন সাফল্য অর্জন করতে পারবে ইনশাআল্লাহ।
পবিত্র রমজান মাসজুড়ে বেসরকারি টেলিভিশন নিউজটোয়েন্টিফোর চ্যানেলে হাফেজদের এ প্রতিযোগিতা সম্প্রচারিত হয়। প্রথমবারের মতো আয়োজিত এ প্রতিযোগিতায় প্রাথমিক অডিশনে সারা দেশের ১০ হাজারের বেশি হাফেজ অংশগ্রহণ করেন। বিভিন্ন ধাপ পেরিয়ে চূড়ান্ত পর্বে বিজয়ী হয় আটজন। সমাপনী অনুষ্ঠানে তাদের নগদ অর্থ ও সনদপত্র দিয়ে পুরস্কৃত করেন বসুন্ধরা গ্রুপের কর্ণধার সায়েম সোবহান আনভীর।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

আল কোরআনের বাণীকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দিতে আপ্রাণ চেষ্টা করবো: সায়েম সোবহান আনভীর

আপডেট সময় : ১০:২৭:০০ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২১ মে ২০২৩

সমকালীন কাগজ ডেস্ক।।

আল কোরআনের বাণী বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে দিতে আপ্রাণ চেষ্টা করা কথা জানালেন বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক।
বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদ মুসল্লি কমিটির প্রধান উপদেষ্টা বসুন্ধরা গ্রুপের কর্ণধার সায়েম সোবহান আনভীর বলেছেন,ইসলাম একটি পবিত্র ধর্ম। ইসলাম শান্তি ও মানবতার ধর্ম হিসেবে সার্বজন স্বীকৃত ও পরিক্ষিত। ইসলাম ধর্মের আদর্শ এবং পবিত্র কোরআনের বাণী বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে দিতে আমি আপ্রাণ চেষ্টা করে যাব।
শনিবার(২০ মে) সন্ধ্যায় রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় দেশের বৃহৎ হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতা‘কুরআনের নূর- বসুন্ধরা গ্রুপ’-এর আয়োজনে সমাপনী অনুষ্ঠানে বক্তব্যকালে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে আয়োজিত এ প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী ও ইসলামিক কনফারেন্সের সভাপতির বক্তব্য প্রদান করেন তিনি। হিফজুল কোরআনের এ প্রতিযোগিতাকে আগামীতে দেশের গন্ডি পেরিয়ে আন্তর্জাতিকীকরণের প্রতিশ্রুতির কথা ব্যক্ত করে তিনি বলেন,আগামীতে আল কোরআনের এই প্রতিযোগিতা আন্তর্জাতিকভাবে বিভিন্ন দেশে অংশ গ্রহণে বাংলাদেশেই অনাড়ম্বর ভাবে আয়োজন করা হবে। যেখানে সারা বিশ্বের সকল দেশের কোরআনের হাফেজগণ অংশগ্রহণ করার সুযোগ পারবেন।

বসুন্ধরার কর্ণধার সায়েম সোবহান আনভীর আরো বলেন,আমি বিশ্বাস করি ইসলামই একমাত্র শান্তির ধর্ম।

ইসলাম মানেই মানবতা। কাজেই আমি যত দিন বেঁচে থাকব,আল কোরআনের বাণীকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দিতে সর্বোচ্চ সফল চেষ্টা করব ইনশাআল্লাহ।’
প্রধান অতিথির বক্তব্যের শুরুতে তিনি পরম করুণাময় মহান আল্লাহ তায়ালার প্রতি শুকরিয়া জ্ঞাপন করেন। দেশ-বিদেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে এ অনুষ্ঠানে আগত অতিথিদের স্বাগত ও বিশেষ ধন্যবাদ জানান।

তিনি বলেন,ভারত ও মিসর থেকে যেসকল মেহমানরা কষ্ট করে এসে আমাদের দেশের এই আয়োজনকে সাফল্য মণ্ডিত কারেছেন, তাদের প্রতি রইলো আমার অন্তরের অন্তস্তল থেকে আন্তরিক কৃতজ্ঞতা ও ভালোবাসা। বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের খতিব সহ চারজন পেশ ইমাম, মুসল্লি কমিটির সদস্যসহ সকল ইসলামিক স্কলার ও বিচারকমণ্ডলীকে অন্তরিক ধন্যবাদ জানাচ্ছি। চট্রগ্রামের বিখ্যাত হাটহাজারী মাদরাসার হজরতসহ দেশের স্বনামধন্য মাদরাসার প্রধান এবং দেড় সহস্রাধিক ইমাম সাহেবদেরকে অনুষ্ঠানে উপস্থিত হওয়ার জন্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি।’
খুদে কোরআানের হাফেজদের কথা আলাদা করে উচ্চারণ করেন সায়েম সোবহান আনভীর বলেন, ‘আমাদের এই পুরো আয়োজনের বিশেষ আকর্ষণ খুদে হাফেজরা।

তাদের সকলপের জন্য আমার ও আমার পরিবারের পক্ষ থেকে প্রাণভরা দোয়া এবং ভালোবাসা রইল। আমি আশা করছি, এ ধরনের আয়োজনের মাধ্যমে আমাদের কোরআনে হাফেজগণ বিশ্বের দরবারে বাংলাদেশের মান আরো উঁচু স্থানে নিয়ে যাবে। তারা নিজেরাও নতুন নতুন সাফল্য অর্জন করতে পারবে ইনশাআল্লাহ।
পবিত্র রমজান মাসজুড়ে বেসরকারি টেলিভিশন নিউজটোয়েন্টিফোর চ্যানেলে হাফেজদের এ প্রতিযোগিতা সম্প্রচারিত হয়। প্রথমবারের মতো আয়োজিত এ প্রতিযোগিতায় প্রাথমিক অডিশনে সারা দেশের ১০ হাজারের বেশি হাফেজ অংশগ্রহণ করেন। বিভিন্ন ধাপ পেরিয়ে চূড়ান্ত পর্বে বিজয়ী হয় আটজন। সমাপনী অনুষ্ঠানে তাদের নগদ অর্থ ও সনদপত্র দিয়ে পুরস্কৃত করেন বসুন্ধরা গ্রুপের কর্ণধার সায়েম সোবহান আনভীর।