ঢাকা ১১:৩২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কমলগঞ্জে বাবা কর্তৃক ধর্ষিতা প্রতিবন্ধী মেয়ের মৃত সন্তান প্রসব

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৭:২৫:১৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৬ জুন ২০২৪ ২৫ বার পড়া হয়েছে
পিতা কর্তৃক প্রতিবন্ধী ধর্ষনে অপরিপক্ক মৃত কন্যা সন্তান প্রসব। ঘটনা জানাজানি হবার পর এলাকাজুড়ে শুরু হয় তোলপাড়।
তিমির বনিক,মৌলভীবাজার প্রতিনিধি:
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে বাবার কুদৃষ্টির লালসার শিকার হয়ে মৃত সন্তান প্রসব করেছে প্রতিবন্ধী মেয়ে। গত মঙ্গলবার (৪ঠা মে) উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ গোলের হাওর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
জানা যায়, পিতা হারুন মিয়া দীর্ঘ দিন যাবত তার অসুস্থ প্রতিবন্ধী মেয়েকে ধর্ষণ করে আসছে। ধর্ষণের ফলে ভিকটিম মেয়ে ৫ মাসের গর্ভবতী হয়ে পড়ে। গত মঙ্গলবার সকালে হারুন মিয়া ডাক্তারের কাছে গর্ভপাত করার জন্য যায়। পরে সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টার দিকে ভিকটিমকে বাড়িতে নিয়ে আসে অভিযুক্ত হারুন। এসময় অপরিপক্ক একটি মৃত কন্যা সন্তান প্রসব করে ভিকটিম।
এ ঘটনা জানাজানি হবার পর এলাকাজুড়ে শুরু হয় তোলপাড়। অনেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সহ বিভিন্ন প্লাটফর্মে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। এছাড়াও অভিযুক্ত হারুন মিয়ার ফাঁসি দাবি করেন।
এ বিষয়ে ইউপি সদস্য আফরুজ আলী জানান, বাবা কর্তৃক ধর্ষিতা মেয়ের মৃত কন্যা সন্তান প্রসব করে। এই ঘটনায় এলাকাজুড়ে শুরু হয় তোলপাড়, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ঘটনা স্থলে রয়েছে।
কমলগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ সঞ্জয় চক্রবর্তী জানান, আশঙ্কাজনক অবস্থায় মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয় বিগটিমকে। এ ঘটনার কোনো অভিযোগ এখনো আসেনি। অভিযোগের ভিত্তিতে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

কমলগঞ্জে বাবা কর্তৃক ধর্ষিতা প্রতিবন্ধী মেয়ের মৃত সন্তান প্রসব

আপডেট সময় : ০৭:২৫:১৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৬ জুন ২০২৪
পিতা কর্তৃক প্রতিবন্ধী ধর্ষনে অপরিপক্ক মৃত কন্যা সন্তান প্রসব। ঘটনা জানাজানি হবার পর এলাকাজুড়ে শুরু হয় তোলপাড়।
তিমির বনিক,মৌলভীবাজার প্রতিনিধি:
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে বাবার কুদৃষ্টির লালসার শিকার হয়ে মৃত সন্তান প্রসব করেছে প্রতিবন্ধী মেয়ে। গত মঙ্গলবার (৪ঠা মে) উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ গোলের হাওর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
জানা যায়, পিতা হারুন মিয়া দীর্ঘ দিন যাবত তার অসুস্থ প্রতিবন্ধী মেয়েকে ধর্ষণ করে আসছে। ধর্ষণের ফলে ভিকটিম মেয়ে ৫ মাসের গর্ভবতী হয়ে পড়ে। গত মঙ্গলবার সকালে হারুন মিয়া ডাক্তারের কাছে গর্ভপাত করার জন্য যায়। পরে সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টার দিকে ভিকটিমকে বাড়িতে নিয়ে আসে অভিযুক্ত হারুন। এসময় অপরিপক্ক একটি মৃত কন্যা সন্তান প্রসব করে ভিকটিম।
এ ঘটনা জানাজানি হবার পর এলাকাজুড়ে শুরু হয় তোলপাড়। অনেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সহ বিভিন্ন প্লাটফর্মে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। এছাড়াও অভিযুক্ত হারুন মিয়ার ফাঁসি দাবি করেন।
এ বিষয়ে ইউপি সদস্য আফরুজ আলী জানান, বাবা কর্তৃক ধর্ষিতা মেয়ের মৃত কন্যা সন্তান প্রসব করে। এই ঘটনায় এলাকাজুড়ে শুরু হয় তোলপাড়, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ঘটনা স্থলে রয়েছে।
কমলগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ সঞ্জয় চক্রবর্তী জানান, আশঙ্কাজনক অবস্থায় মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয় বিগটিমকে। এ ঘটনার কোনো অভিযোগ এখনো আসেনি। অভিযোগের ভিত্তিতে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।