ঢাকা ০৩:৩৭ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঘূর্ণিঝড় মোখার তান্ডবে কক্সবাজারে ১০ হাজার ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৭:১৫:০৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ মে ২০২৩ ৭৩ বার পড়া হয়েছে
সমকালীন কাগজ রিপোর্ট।।
ঘূর্ণিঝড় মোকার তাণ্ডবে টেকনাফ ও সেন্ট মার্টিন সহ কক্সবাজারে বিভিন্ন স্থানে ১০ হাজার ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।এর মধ্যে সেন্ট মার্টিনেই ১২ শত ঘরবাড়ির ক্ষতি হয়েছে। এ ছাড়া অসংখ্য গাছপালা উপড়ে পড়েছে। প্রচণ্ড গতির বাতাস নিয়ে
রোববার (১৪ মে) বিকাল ৩টার দিকে কক্সবাজার ও মিয়ানমার উপকূলে আঘাত হেনেছে ঘূর্ণিঝড় মোখা।
সেন্ট মার্টিনের বাসিন্দারা জানান, মোখার তাণ্ডব চলাকালে জোয়ার ছিল না। সমুদ্রের বুকে সেন্ট মার্টিন দ্বীপটি দাঁড়িয়ে আছে। সেন্ট মার্টিনের প্রায় ৯০ ভাগ মানুষের বাড়িঘরের ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়েছে। দ্বীপের ছোটবড় হাজারের বেশি গাছপালা ভেঙে পড়েছে। গাছ ভেঙে পড়ে আহত হয়েছেন ১১ জন।তবে কেউ নিহত হয়নি।
সেন্ট মার্টিন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমান জানান,এ দ্বীপে মোখার তাণ্ডবে অনেক ঘরবাড়ি ও টিনের চাল উড়ে গেছে। যারা বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তাদের সহায়তা দেওয়া হবে।
কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক শাহীন ইমরান বলেন, মোখার তাণ্ডব সন্ধ্যার পর পুরোদমে শিথিল হয়ে গেছে। সিগন্যাল কমে এলে আশ্রয়কেন্দ্রে থাকা আড়াই লাখ মানুষ ঘরে ফিরতে পারবেন বলে জানিয়েছেন তিনি। সেন্ট মার্টিনে ১২ শত ঘরবাড়ি সম্পূর্ণ বিধস্ত ও ১১ জন আহত হয়েছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। জেলায় ১০ হাজার কাঁচা ঘরবাড়ি আংশিক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।ক্ষতিগ্রস্থদের অর্থিকভাবে সাহায্য ও সহায়তা প্রদান করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

ঘূর্ণিঝড় মোখার তান্ডবে কক্সবাজারে ১০ হাজার ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত

আপডেট সময় : ০৭:১৫:০৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ মে ২০২৩
সমকালীন কাগজ রিপোর্ট।।
ঘূর্ণিঝড় মোকার তাণ্ডবে টেকনাফ ও সেন্ট মার্টিন সহ কক্সবাজারে বিভিন্ন স্থানে ১০ হাজার ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।এর মধ্যে সেন্ট মার্টিনেই ১২ শত ঘরবাড়ির ক্ষতি হয়েছে। এ ছাড়া অসংখ্য গাছপালা উপড়ে পড়েছে। প্রচণ্ড গতির বাতাস নিয়ে
রোববার (১৪ মে) বিকাল ৩টার দিকে কক্সবাজার ও মিয়ানমার উপকূলে আঘাত হেনেছে ঘূর্ণিঝড় মোখা।
সেন্ট মার্টিনের বাসিন্দারা জানান, মোখার তাণ্ডব চলাকালে জোয়ার ছিল না। সমুদ্রের বুকে সেন্ট মার্টিন দ্বীপটি দাঁড়িয়ে আছে। সেন্ট মার্টিনের প্রায় ৯০ ভাগ মানুষের বাড়িঘরের ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়েছে। দ্বীপের ছোটবড় হাজারের বেশি গাছপালা ভেঙে পড়েছে। গাছ ভেঙে পড়ে আহত হয়েছেন ১১ জন।তবে কেউ নিহত হয়নি।
সেন্ট মার্টিন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমান জানান,এ দ্বীপে মোখার তাণ্ডবে অনেক ঘরবাড়ি ও টিনের চাল উড়ে গেছে। যারা বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তাদের সহায়তা দেওয়া হবে।
কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক শাহীন ইমরান বলেন, মোখার তাণ্ডব সন্ধ্যার পর পুরোদমে শিথিল হয়ে গেছে। সিগন্যাল কমে এলে আশ্রয়কেন্দ্রে থাকা আড়াই লাখ মানুষ ঘরে ফিরতে পারবেন বলে জানিয়েছেন তিনি। সেন্ট মার্টিনে ১২ শত ঘরবাড়ি সম্পূর্ণ বিধস্ত ও ১১ জন আহত হয়েছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। জেলায় ১০ হাজার কাঁচা ঘরবাড়ি আংশিক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।ক্ষতিগ্রস্থদের অর্থিকভাবে সাহায্য ও সহায়তা প্রদান করা হবে।