ঢাকা ০৩:৫৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নারী কেলেঙ্কারীর ঘটনায় মোংলার সেই পুলিশ কর্মকর্তা প্রত্যাহার

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৩:৪৯:১১ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৪ মে ২০২৪ ১৬ বার পড়া হয়েছে

ছবি: পুলিশ পরিদর্শক হীরন্ময় সরকার

 

 

অনলাইন ডেস্ক।।

 

বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ও প্রতারণার মাধ্যমে ফাঁদে ফেলে এক নারীর সাথে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনের অভিযোগে মোংলা থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) হীরন্ময় সরকারকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। একই সাথে ভুক্তভোগী ওই নারীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে তদন্ত শুরু করেছে জেলা পুলিশ।
বাগেরহাট জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রাসেলুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ভুক্তভোগী ওই নারীর অভিযোগে উল্লেখ করেন, পিবিআইতে চাকরির সুবাধে যশোরে অবস্থান কালীন ভুক্তভোগী ওই নারীর সাথে পরিচয় হয় পুলিশ কর্মকর্তা হীরন্ময় সরকারের।এরপর তাদের মধ্যে প্রেমে সম্পর্ক গড়ে ওঠে এবং বিয়ে করার প্রলোভন দেখিয়ে তার সাথে শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তোলেন ওই পুলিশ সদস্য। এভাবে প্রায় চার বছর কেটে যায় সম্পের্কের মাঝে। এরই মধ্যে ওই নারী প্রেগন্যান্ট হওয়ার পর গর্ভের বাচ্চা নষ্ট করার অভিযোগ করেন ৩২ বছর বয়সী ভুক্তভোগী ওই নারী।এতে তাকে বিয়ের চাপ দিতে থাকলে পুলিশ কর্মকর্তা হীরন্ময় সরকার সম্পূর্ণরুপে যোগাযোগ বন্ধ করে দেন ভুক্তভোগীর সাথে।

গত বৃহস্পতিবার (৯ মে) মোংলায় এসে বিষয়টি থানার ওসি ও সহকারী পুলিশ সুপারকে অবহিত করেন ভুক্তভোগী। পরে শনিবার (১১ মে) বাগেরহাট পুলিশ সুপার মো. আবুল হাসনাত বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন ওই নারী।

অভিযোগে তিনি জানান, নিজেকে তিনি মুসলিম পরিচয় দিয়ে ও বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে শারীরিক সম্পর্ক করে পুলিশ কর্মকর্তা হীরন্ময় সরকার তার সাথে প্রতারণা করেছেন।

এরপর এ ঘটনায় স্যাটেলাইট টেলিভিশন চ্যানেল ও প্রিন্ট মিডিয়ায় এ সংক্রান্ত সংবাদ প্রচার ও প্রকাশ হলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তোলপাড় শুরু হয়।

সোমবার (১৩ মে) দুপুরে জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জানান, অভিযোগের বিষয়ে তদন্ত করতে অভিযুক্ত পুলিশ কর্মকর্তা হীরন্ময় সরকারকে মোংলা থানা থেকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।যেহেতু ফৌজদারী অপরাধে হীরন্ময়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ দাখিল করেছেন এক নারী।এ বিষয়টি তদন্তে সত্যতা পাওয়া গেলে অভিযুক্ত হীরন্ময়ের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যাবস্থার পাশাপাশি চাকরিচ্যুতও হতে পারেন বলে জানান পুলিশ এ উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

নারী কেলেঙ্কারীর ঘটনায় মোংলার সেই পুলিশ কর্মকর্তা প্রত্যাহার

আপডেট সময় : ০৩:৪৯:১১ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৪ মে ২০২৪

ছবি: পুলিশ পরিদর্শক হীরন্ময় সরকার

 

 

অনলাইন ডেস্ক।।

 

বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ও প্রতারণার মাধ্যমে ফাঁদে ফেলে এক নারীর সাথে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনের অভিযোগে মোংলা থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) হীরন্ময় সরকারকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। একই সাথে ভুক্তভোগী ওই নারীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে তদন্ত শুরু করেছে জেলা পুলিশ।
বাগেরহাট জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রাসেলুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ভুক্তভোগী ওই নারীর অভিযোগে উল্লেখ করেন, পিবিআইতে চাকরির সুবাধে যশোরে অবস্থান কালীন ভুক্তভোগী ওই নারীর সাথে পরিচয় হয় পুলিশ কর্মকর্তা হীরন্ময় সরকারের।এরপর তাদের মধ্যে প্রেমে সম্পর্ক গড়ে ওঠে এবং বিয়ে করার প্রলোভন দেখিয়ে তার সাথে শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তোলেন ওই পুলিশ সদস্য। এভাবে প্রায় চার বছর কেটে যায় সম্পের্কের মাঝে। এরই মধ্যে ওই নারী প্রেগন্যান্ট হওয়ার পর গর্ভের বাচ্চা নষ্ট করার অভিযোগ করেন ৩২ বছর বয়সী ভুক্তভোগী ওই নারী।এতে তাকে বিয়ের চাপ দিতে থাকলে পুলিশ কর্মকর্তা হীরন্ময় সরকার সম্পূর্ণরুপে যোগাযোগ বন্ধ করে দেন ভুক্তভোগীর সাথে।

গত বৃহস্পতিবার (৯ মে) মোংলায় এসে বিষয়টি থানার ওসি ও সহকারী পুলিশ সুপারকে অবহিত করেন ভুক্তভোগী। পরে শনিবার (১১ মে) বাগেরহাট পুলিশ সুপার মো. আবুল হাসনাত বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন ওই নারী।

অভিযোগে তিনি জানান, নিজেকে তিনি মুসলিম পরিচয় দিয়ে ও বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে শারীরিক সম্পর্ক করে পুলিশ কর্মকর্তা হীরন্ময় সরকার তার সাথে প্রতারণা করেছেন।

এরপর এ ঘটনায় স্যাটেলাইট টেলিভিশন চ্যানেল ও প্রিন্ট মিডিয়ায় এ সংক্রান্ত সংবাদ প্রচার ও প্রকাশ হলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তোলপাড় শুরু হয়।

সোমবার (১৩ মে) দুপুরে জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জানান, অভিযোগের বিষয়ে তদন্ত করতে অভিযুক্ত পুলিশ কর্মকর্তা হীরন্ময় সরকারকে মোংলা থানা থেকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।যেহেতু ফৌজদারী অপরাধে হীরন্ময়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ দাখিল করেছেন এক নারী।এ বিষয়টি তদন্তে সত্যতা পাওয়া গেলে অভিযুক্ত হীরন্ময়ের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যাবস্থার পাশাপাশি চাকরিচ্যুতও হতে পারেন বলে জানান পুলিশ এ উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা।