ঢাকা ১০:৫৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জেনে রাখুন.! শরীরকে ঠান্ডা রাখতে কাঁচা আমের প্রয়োজনীয়তা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:৪৩:০০ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪ ১১ বার পড়া হয়েছে

 

ঋতম্ভরা বন্দোপাধ্যায়,কলকাতা।।
কাঁচা আমের পান্না বানিয়ে গ্যাস ও এসিডিটি কে জব্দ করুন। আম পান্নার চমৎকারিতা সবাই কে চমকে দেবে। এটি সুস্বাদু ও স্বাস্থ্যকর পানীয় গুলির মধ্যে বিশেষ একটি বলে বিবেচিত হয়। তীব্র গরম থেকে শরীর কে মুক্তি পাওয়াতে এবং সতেজ রাখতে জুড়ি নেই। আম পান্নার রোগ প্রতিরোধকতা অপরিসীম। আম পান্না শরীরে দুর্বল সিস্টেম কে আরো শক্তিশালী করে তোলে। এতে প্রচুর ভিটামিন পাওয়া যায় যা স্বাস্থ্যের জন্য খুব জরুরি। এটা লিভারে জমে থাকা ময়লা কে পরিস্কার করে ও রোগ প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে। পেট সংক্রান্ত নানা সমস্যা বিশেষ করে কোষ্ঠকাঠিন্যের মতো কঠিন সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে সাহায্য করে।
আম পান্না এন্টি অক্সিডেন্ট , ফলে রক্তক্ষরণ কমানো থেকে সাহায্য করে। নিঃশ্বাসের দুর্গন্ধ দূর করা হিট স্ট্রোক এবং ডিহাইড্রেসন দূর করা থেকে সাহায্য করে। গ্রীষ্ম কালে শরীর কে ব্যক্টেরিয়া ও ভাইরালের হাত থেকে রক্ষা করে শরীরের শৃঙ্খলা বজায় রাখতে সাহায্য করে।
 আম পান্না একটি ট্যান্জি ড্রিংক। আম পান্না এই ড্রিংক টি উত্তর ও পশ্চিম ভারতে জনপ্রিয়। সেদ্ধ আমের সাথে শুকনো জিরা , ভেষজ এলাচ, কালা নমক এবং গুড় একত্রে মিশিয়ে একটি ঘন দ্রবন তৈরি হবে। এ দ্রবন পরিমাণ মতো নিয়ে তার মধ্যে আন্দাজ মতো করে জল মিশিয়ে পান করতে হবে। গ্লুটেন-মুক্ত এই সিরাপ টি তে গ্রাউন্ড মশলা এবং কালো লবন যোগ করার জন্য এই বিস্ময়কর পানীয় টি কেবল আরো স্বাদ আনে না হজমের ও সাহায্য করে। আরেক ভাবে গোটা কাঁচা আমকে কাঠ কয়লার আগুনে পুড়িয়ে নিয়ে খোশা ছাড়িয়ে তার মধ্যে কালা নমক,আখের গুড় এবং জল মিশিয়ে একটি দ্রবন তৈরি করে একই ভাবে পান করতে হবে। আম পান্না আখের রস এর সাথে মিশিয়ে খেলে ও অনেক আরো উপকার পাওয়া যায়। আম পান্না সিরাপ দীর্ঘ স্টোরেজের জন্য ফ্রিজে রাখা যায়।
 আম পুদিনার মেলবন্ধন:
কাঁচা আম, পুদিনা পাতা , ধনে পাতা দু চার কোয়া রসুন, একটা কাঁচালঙ্কা, হাফ চামচ পাকা তেঁতুলের কাত, সন্ধক নুন,এক পিস টমেটো এবং পরিমাণ মতো আখের গুড় মিক্সিতে দিয়ে ঘন করে পেস্ট করে নেবেন তার মধ্যে একটু পাতিলেবুর রস এবং কাঁচা তেল দিয়ে মিশিয়ে তৈরি করে ফেলুন কাঁচা আমের রসালো চাটনি।
মজাদার কাঁচা আমের চটক :
 প্রয়োজন মতো কাঁচা আম খোসা ছাড়িয়ে ঘষানি (গ্রেটার) তে ঘষে নিন। ঘষা আমের মধ্যে পরিমাণ মতো নুন ও হলুদ গুঁড়ো মিশিয়ে একটা পাথরের বা কাঁচের পাত্রে রেখে রোদে দিন। দু তিন দিন রাখার পর মিশ্রণ টি মজে যাবে। মজে গেলে এর মধ্যে চিনি শিরা বা আখের গুড়ের শিরা মিশিয়ে একটি কাঁচের বোতলে ভরে কয়েকদিন রোদে দিতে হবে। মিশ্রণ টি ভালো ভাবে মজে গেলে এবং রঙটা লালচে হয়ে এলে মজাদার চটপটা কাঁচা আমের চটক তৈরি।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

জেনে রাখুন.! শরীরকে ঠান্ডা রাখতে কাঁচা আমের প্রয়োজনীয়তা

আপডেট সময় : ১১:৪৩:০০ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪

 

ঋতম্ভরা বন্দোপাধ্যায়,কলকাতা।।
কাঁচা আমের পান্না বানিয়ে গ্যাস ও এসিডিটি কে জব্দ করুন। আম পান্নার চমৎকারিতা সবাই কে চমকে দেবে। এটি সুস্বাদু ও স্বাস্থ্যকর পানীয় গুলির মধ্যে বিশেষ একটি বলে বিবেচিত হয়। তীব্র গরম থেকে শরীর কে মুক্তি পাওয়াতে এবং সতেজ রাখতে জুড়ি নেই। আম পান্নার রোগ প্রতিরোধকতা অপরিসীম। আম পান্না শরীরে দুর্বল সিস্টেম কে আরো শক্তিশালী করে তোলে। এতে প্রচুর ভিটামিন পাওয়া যায় যা স্বাস্থ্যের জন্য খুব জরুরি। এটা লিভারে জমে থাকা ময়লা কে পরিস্কার করে ও রোগ প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে। পেট সংক্রান্ত নানা সমস্যা বিশেষ করে কোষ্ঠকাঠিন্যের মতো কঠিন সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে সাহায্য করে।
আম পান্না এন্টি অক্সিডেন্ট , ফলে রক্তক্ষরণ কমানো থেকে সাহায্য করে। নিঃশ্বাসের দুর্গন্ধ দূর করা হিট স্ট্রোক এবং ডিহাইড্রেসন দূর করা থেকে সাহায্য করে। গ্রীষ্ম কালে শরীর কে ব্যক্টেরিয়া ও ভাইরালের হাত থেকে রক্ষা করে শরীরের শৃঙ্খলা বজায় রাখতে সাহায্য করে।
 আম পান্না একটি ট্যান্জি ড্রিংক। আম পান্না এই ড্রিংক টি উত্তর ও পশ্চিম ভারতে জনপ্রিয়। সেদ্ধ আমের সাথে শুকনো জিরা , ভেষজ এলাচ, কালা নমক এবং গুড় একত্রে মিশিয়ে একটি ঘন দ্রবন তৈরি হবে। এ দ্রবন পরিমাণ মতো নিয়ে তার মধ্যে আন্দাজ মতো করে জল মিশিয়ে পান করতে হবে। গ্লুটেন-মুক্ত এই সিরাপ টি তে গ্রাউন্ড মশলা এবং কালো লবন যোগ করার জন্য এই বিস্ময়কর পানীয় টি কেবল আরো স্বাদ আনে না হজমের ও সাহায্য করে। আরেক ভাবে গোটা কাঁচা আমকে কাঠ কয়লার আগুনে পুড়িয়ে নিয়ে খোশা ছাড়িয়ে তার মধ্যে কালা নমক,আখের গুড় এবং জল মিশিয়ে একটি দ্রবন তৈরি করে একই ভাবে পান করতে হবে। আম পান্না আখের রস এর সাথে মিশিয়ে খেলে ও অনেক আরো উপকার পাওয়া যায়। আম পান্না সিরাপ দীর্ঘ স্টোরেজের জন্য ফ্রিজে রাখা যায়।
 আম পুদিনার মেলবন্ধন:
কাঁচা আম, পুদিনা পাতা , ধনে পাতা দু চার কোয়া রসুন, একটা কাঁচালঙ্কা, হাফ চামচ পাকা তেঁতুলের কাত, সন্ধক নুন,এক পিস টমেটো এবং পরিমাণ মতো আখের গুড় মিক্সিতে দিয়ে ঘন করে পেস্ট করে নেবেন তার মধ্যে একটু পাতিলেবুর রস এবং কাঁচা তেল দিয়ে মিশিয়ে তৈরি করে ফেলুন কাঁচা আমের রসালো চাটনি।
মজাদার কাঁচা আমের চটক :
 প্রয়োজন মতো কাঁচা আম খোসা ছাড়িয়ে ঘষানি (গ্রেটার) তে ঘষে নিন। ঘষা আমের মধ্যে পরিমাণ মতো নুন ও হলুদ গুঁড়ো মিশিয়ে একটা পাথরের বা কাঁচের পাত্রে রেখে রোদে দিন। দু তিন দিন রাখার পর মিশ্রণ টি মজে যাবে। মজে গেলে এর মধ্যে চিনি শিরা বা আখের গুড়ের শিরা মিশিয়ে একটি কাঁচের বোতলে ভরে কয়েকদিন রোদে দিতে হবে। মিশ্রণ টি ভালো ভাবে মজে গেলে এবং রঙটা লালচে হয়ে এলে মজাদার চটপটা কাঁচা আমের চটক তৈরি।