ঢাকা ০২:০৯ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

এমপি আজীম ভারতে খুন হয়েছেন, বাংলাদেশী চক্র জড়িত: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৭:৩০:৫৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ২২ মে ২০২৪ ১৪ বার পড়া হয়েছে

ছবি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান

 

নিজস্ব প্রতিবেদক।।

 

 

ঝিনাইদহ-৪ আসনের সাংসদ আনোয়ারুল আজিমকে বাংলাদেশী চক্রের সদস্যরা হত্যা করেছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কলকাতা পুলিশ বিষয়টি নিয়ে কাজ করছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে আনোয়ারুল আজিমের হত্যাকাণ্ডের খবর নিশ্চিত হওয়ার পর বুধবার (২২ মে) ঢাকাস্থ নিজ বাসভবনে প্রেস ব্রিফিং করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। এ সময় পুলিশের মহা-পরিদর্শক (আইজিপি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন ও ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার হাবিবুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

এমপি আনোয়ারুল আজিমকে হত্যার ঘটনায় নারী সহ ৩ আসামিকে ধরা হয়েছে উল্লেখ করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা আরও কয়েকজনকে ধরার চেষ্টায় আছি। এটা নিছক পরিকল্পিত হত্যাকান্ড। তাঁকে (আনোয়ারুল আজিম) খুন করা হয়েছে। এখানে প্রতিবেশী দেশ ভারতের সঙ্গে সম্পর্কে ফাটল ধরবে, এমন কোনো ঘটনা ঘটেনি। কারণ, ভারতের কেউ এখানে জড়িত নন। এখন পর্যন্ত আমাদের কাছে যে তথ্য আছে, তাতে আমাদের দেশের মানুষই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত।’
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এমপি আনোয়ারুল আজিমকে কলকাতার একটি ফ্লাটে পরিকল্পিতভাবে খুন করা হয়েছে। খুনের উদ্দেশ্য, কারা খুন করেছে, এসব জানতে ভারতের পুলিশ কাজ করছে।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেন, ‘আমাদের কাছে যেসব তথ্য আছে, তা তদন্তের স্বার্থে এখনই প্রকাশ করা যাচ্ছে না। তদন্ত শেষ হলে বিস্তারিত জানানো হবে, তিনি কেন খুন হয়েছেন, কে কে খুন করেছে, কী ধরনের অস্ত্র দিয়ে খুন করা হয়েছে।’ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, মরদেহ এখনো আসেনি। দুই দেশের পুলিশ তদন্ত করছে। ভারতের পুলিশ আমাদের জানিয়েছে যে তিনি খুন হয়েছেন, এটা নিশ্চিত।
এ ঘটনায় আটক ব্যক্তিদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘তদন্ত চলছে। যারা এই খুনের সঙ্গে জড়িত, তাদের উদ্দেশ্য কী ছিল, তদন্ত শেষে আমরা পরে সেগুলো প্রকাশ করব।’

প্রসঙ্গত,পরিবারের তথ্য মতে এর আগে এমপি আনোয়ারুল আজিম ১২ মে চিকিৎসার জন্য দর্শনা সীমান্ত দিয়ে ভারতে যান। ১৬ মে থেকে পরিবারের সদস্যদের সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন ও তিনি নিখোঁজ ছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

এমপি আজীম ভারতে খুন হয়েছেন, বাংলাদেশী চক্র জড়িত: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

আপডেট সময় : ০৭:৩০:৫৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ২২ মে ২০২৪

ছবি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান

 

নিজস্ব প্রতিবেদক।।

 

 

ঝিনাইদহ-৪ আসনের সাংসদ আনোয়ারুল আজিমকে বাংলাদেশী চক্রের সদস্যরা হত্যা করেছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কলকাতা পুলিশ বিষয়টি নিয়ে কাজ করছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে আনোয়ারুল আজিমের হত্যাকাণ্ডের খবর নিশ্চিত হওয়ার পর বুধবার (২২ মে) ঢাকাস্থ নিজ বাসভবনে প্রেস ব্রিফিং করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। এ সময় পুলিশের মহা-পরিদর্শক (আইজিপি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন ও ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার হাবিবুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

এমপি আনোয়ারুল আজিমকে হত্যার ঘটনায় নারী সহ ৩ আসামিকে ধরা হয়েছে উল্লেখ করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা আরও কয়েকজনকে ধরার চেষ্টায় আছি। এটা নিছক পরিকল্পিত হত্যাকান্ড। তাঁকে (আনোয়ারুল আজিম) খুন করা হয়েছে। এখানে প্রতিবেশী দেশ ভারতের সঙ্গে সম্পর্কে ফাটল ধরবে, এমন কোনো ঘটনা ঘটেনি। কারণ, ভারতের কেউ এখানে জড়িত নন। এখন পর্যন্ত আমাদের কাছে যে তথ্য আছে, তাতে আমাদের দেশের মানুষই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত।’
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এমপি আনোয়ারুল আজিমকে কলকাতার একটি ফ্লাটে পরিকল্পিতভাবে খুন করা হয়েছে। খুনের উদ্দেশ্য, কারা খুন করেছে, এসব জানতে ভারতের পুলিশ কাজ করছে।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেন, ‘আমাদের কাছে যেসব তথ্য আছে, তা তদন্তের স্বার্থে এখনই প্রকাশ করা যাচ্ছে না। তদন্ত শেষ হলে বিস্তারিত জানানো হবে, তিনি কেন খুন হয়েছেন, কে কে খুন করেছে, কী ধরনের অস্ত্র দিয়ে খুন করা হয়েছে।’ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, মরদেহ এখনো আসেনি। দুই দেশের পুলিশ তদন্ত করছে। ভারতের পুলিশ আমাদের জানিয়েছে যে তিনি খুন হয়েছেন, এটা নিশ্চিত।
এ ঘটনায় আটক ব্যক্তিদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘তদন্ত চলছে। যারা এই খুনের সঙ্গে জড়িত, তাদের উদ্দেশ্য কী ছিল, তদন্ত শেষে আমরা পরে সেগুলো প্রকাশ করব।’

প্রসঙ্গত,পরিবারের তথ্য মতে এর আগে এমপি আনোয়ারুল আজিম ১২ মে চিকিৎসার জন্য দর্শনা সীমান্ত দিয়ে ভারতে যান। ১৬ মে থেকে পরিবারের সদস্যদের সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন ও তিনি নিখোঁজ ছিলেন।