ঢাকা ০১:০৩ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গাসিক নির্বাচন: বেসরকারিভাবে নির্বাচিত জায়েদা খাতুন

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৮:১৯:৩৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ মে ২০২৩ ১০৫ বার পড়া হয়েছে

সমকালীন কাগজ প্রতিবেদক।।

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন(গাসিক)নির্বাচনে ৪৮০ ভোট কেন্দ্রের মধ্যে ৪৮০টির বেসরকারি ফলাফল চুড়ান্তভাবে ঘোষণা করা হয়েছে। এসকল কেন্দ্রে সাবেক মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের মাতা স্বতন্ত্র প্রার্থী জায়েদা খাতুন টেবিল ঘড়ি প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ২ লাখ ৩৮ হাজার ৯৩৪ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের নৌকার প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট আজমত উল্লা খান পেয়েছেন ২ লাখ ২২ হাজার ৭৩৭ ভোট। ১৬ হাজার ১৯৭ ভোটে আওয়ামী প্রার্থী আজমত উল্লা খানকে হারিয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন জায়েদা খাতুন।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে এই নির্বাচনের চুড়ান্ত ফলাফল ঘোষণা করা হয়।

প্রসঙ্গত, এর আগে সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনে ভোটগ্রহণ চলে। সন্ধ্যায় গাজীপুরের বঙ্গতাজ অডিটোরিয়ামের ফলাফল সংগ্রহ ও বিভিন্ন কেন্দ্র থেকে পাওয়া ফলাফল একে একে ল ঘোষণা শুরু করেন ঢাকার আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মো.ফরিদুল ইসলাম।

আগারগাঁওস্থ নির্বাচন ভবনে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের(গাসিক) ভোটগ্রহণ শেষে এক ব্রিফিংয়ে নির্বাচন কমিশনার মো. আলমগীর জানান, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন সুষ্ঠু, শান্তিপূর্ণ, অবাধ ও নিরপেক্ষ হয়েছে। এমন ভোটে আমরা অত্যন্ত সন্তুষ্ট। কারণ প্রার্থীসহ সবাই সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। সারাদিনের ভোটে কেউ কোনো অন্যায় করেনি, এটি আমাদের বড় সফলতা।

৩২৯ বর্গকিলোমিটার আয়তনের গাজীপুর সিটির তৃতীয় নির্বাচনে ৫৭টি ওয়ার্ডে রয়েছে ৪৮০টি ভোটকেন্দ্র। সব কেন্দ্রে ইভিএমের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ করা হয়। এসব কেন্দ্রে লাগানো হয় সিসিটিভি ক্যামেরা।

নির্বাচন কমিশনের তথ্যানুযায়ী, গাজীপুর সিটিতে ভোটার সংখ্যা ১১ লাখ ৭৯ হাজার ৪৭৬ জন। এর মধ্যে পুরুষ ৫ লাখ ৯২ হাজার ৭৬২ জন, নারী ৫ লাখ ৮৬ হাজার ৬৯৬ জন এবং তৃতীয় লিঙ্গের ১৮ জন। এই সিটিতে ৫৭টি সাধারণ ও ১৯টি সংরক্ষিত ওয়ার্ড আছে।
নির্বাচনে মেয়র পদে ৮জন লড়লেও আলোচনায় রয়েছেন নৌকা মার্কা নিয়ে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আজমত উল্লা খান ও সাবেক মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের মাতা স্বতন্ত্র প্রার্থী টেবিল ঘড়ি প্রতীকের জায়েদা খাতুন। বাকি সকল প্রার্থীরা হলেন- লাঙ্গল প্রতীকে জাতীয় পার্টির প্রার্থী এম এম নিয়াজ উদ্দিন, হাতপাখা প্রতীকে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের গাজী আতাউর রহমান, গোলাপ ফুল প্রতীকে জাকের পার্টির মো. রাজু আহাম্মেদ, মাছ প্রতীকে গণফ্রন্টের প্রার্থী আতিকুল ইসলাম। এছাড়া স্বতন্ত্র থেকে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ঘোড়া প্রতীকে মো. হারুন-অর-রশীদ ও হাতি প্রতীকে সরকার শাহনূর ইসলাম।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

গাসিক নির্বাচন: বেসরকারিভাবে নির্বাচিত জায়েদা খাতুন

আপডেট সময় : ০৮:১৯:৩৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ মে ২০২৩

সমকালীন কাগজ প্রতিবেদক।।

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন(গাসিক)নির্বাচনে ৪৮০ ভোট কেন্দ্রের মধ্যে ৪৮০টির বেসরকারি ফলাফল চুড়ান্তভাবে ঘোষণা করা হয়েছে। এসকল কেন্দ্রে সাবেক মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের মাতা স্বতন্ত্র প্রার্থী জায়েদা খাতুন টেবিল ঘড়ি প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ২ লাখ ৩৮ হাজার ৯৩৪ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের নৌকার প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট আজমত উল্লা খান পেয়েছেন ২ লাখ ২২ হাজার ৭৩৭ ভোট। ১৬ হাজার ১৯৭ ভোটে আওয়ামী প্রার্থী আজমত উল্লা খানকে হারিয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন জায়েদা খাতুন।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে এই নির্বাচনের চুড়ান্ত ফলাফল ঘোষণা করা হয়।

প্রসঙ্গত, এর আগে সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনে ভোটগ্রহণ চলে। সন্ধ্যায় গাজীপুরের বঙ্গতাজ অডিটোরিয়ামের ফলাফল সংগ্রহ ও বিভিন্ন কেন্দ্র থেকে পাওয়া ফলাফল একে একে ল ঘোষণা শুরু করেন ঢাকার আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মো.ফরিদুল ইসলাম।

আগারগাঁওস্থ নির্বাচন ভবনে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের(গাসিক) ভোটগ্রহণ শেষে এক ব্রিফিংয়ে নির্বাচন কমিশনার মো. আলমগীর জানান, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন সুষ্ঠু, শান্তিপূর্ণ, অবাধ ও নিরপেক্ষ হয়েছে। এমন ভোটে আমরা অত্যন্ত সন্তুষ্ট। কারণ প্রার্থীসহ সবাই সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। সারাদিনের ভোটে কেউ কোনো অন্যায় করেনি, এটি আমাদের বড় সফলতা।

৩২৯ বর্গকিলোমিটার আয়তনের গাজীপুর সিটির তৃতীয় নির্বাচনে ৫৭টি ওয়ার্ডে রয়েছে ৪৮০টি ভোটকেন্দ্র। সব কেন্দ্রে ইভিএমের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ করা হয়। এসব কেন্দ্রে লাগানো হয় সিসিটিভি ক্যামেরা।

নির্বাচন কমিশনের তথ্যানুযায়ী, গাজীপুর সিটিতে ভোটার সংখ্যা ১১ লাখ ৭৯ হাজার ৪৭৬ জন। এর মধ্যে পুরুষ ৫ লাখ ৯২ হাজার ৭৬২ জন, নারী ৫ লাখ ৮৬ হাজার ৬৯৬ জন এবং তৃতীয় লিঙ্গের ১৮ জন। এই সিটিতে ৫৭টি সাধারণ ও ১৯টি সংরক্ষিত ওয়ার্ড আছে।
নির্বাচনে মেয়র পদে ৮জন লড়লেও আলোচনায় রয়েছেন নৌকা মার্কা নিয়ে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আজমত উল্লা খান ও সাবেক মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের মাতা স্বতন্ত্র প্রার্থী টেবিল ঘড়ি প্রতীকের জায়েদা খাতুন। বাকি সকল প্রার্থীরা হলেন- লাঙ্গল প্রতীকে জাতীয় পার্টির প্রার্থী এম এম নিয়াজ উদ্দিন, হাতপাখা প্রতীকে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের গাজী আতাউর রহমান, গোলাপ ফুল প্রতীকে জাকের পার্টির মো. রাজু আহাম্মেদ, মাছ প্রতীকে গণফ্রন্টের প্রার্থী আতিকুল ইসলাম। এছাড়া স্বতন্ত্র থেকে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ঘোড়া প্রতীকে মো. হারুন-অর-রশীদ ও হাতি প্রতীকে সরকার শাহনূর ইসলাম।