ঢাকা ০২:৪৮ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আটকে গেল না’গঞ্জে রেলওয়ে কল্যান ট্রাষ্টের বিপণিবিতান নির্মাণ কাজ

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৬:২৩:১১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৭ জুন ২০২৪ ২৭ বার পড়া হয়েছে

 

অনলাইন ডেস্ক।।

 

 

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন(নাসিক) এলাকায় রেলওয়ে স্টেশনের নিকটে, বাংলাদেশ রেলওয়ে (কর্মচারী) কল্যাণ ট্রাস্টের জমিতে বিপণি বিতান নির্মাণের কাজ চলমান ছিলো, তার দখল ও অবস্থানের ওপর স্থিতাবস্থা বজায় রাখতে নির্দেশ দিয়েছেন মহামান্য হাইকোর্ট।উভয়

এ স্থিতাবস্থা  রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে বিচারপতি নাইমা হায়দার ও বিচারপতি কাজী জিনাত হকের সমন্বয়ে গঠিত মহামান্য হাইকোর্ট বেঞ্চ গত ১৩ মে রুলসহ এ আদেশ জারি করেন। ফলশ্রুতিতে উক্ত স্থানে বিপণি বিতান নির্মাণের কাজ করা যাবে না বলে জানিয়েছেন রিট আবেদনকারীর আইনজীবী।

বিপণি বিতান নির্মাণ কার্যক্রমের বৈধতা নিয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের(নাসিক) পক্ষে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা(সিইও) রিটটি করেন।

জমিটি নারায়ণগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশনের ঠিক পশ্চিম পাশে।প্রায় সাড়ে তিন বিঘার মতো আয়তনের সেই জমিতে মাল্টিমোডাল হাব (কেন্দ্র) নির্মাণের কথা। অর্থাৎ সেটি হওয়ার কথা রেল, নৌ ও সড়কপথে চলাচলের একটি কেন্দ্র।
এ সময় আদালতে রিটের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী আহসানুল করিম, আইনজীবী সৈয়দা নাসরিন ও এম ফেরদৌস আল বসির। এছাড়াও রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত দাশ গুপ্ত ও সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল তৌফিক সাজাওয়ার।

হাইকোর্টের আদেশের বিষয় নিশ্চিত  জানিয়ে গতকাল মঙ্গলবার আইনজীবী সৈয়দা নাসরিন বলেন, নারায়ণগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশনের যে জায়গায় রেলওয়ে (কর্মচারী) কল্যাণ ট্রাস্ট বিপণিবিতান নির্মাণ করছে, সেই জায়গার অবস্থান ও দখলের ওপর উভয় পক্ষকে স্থিতাবস্থা বজায় রাখতে নির্দেশ দিয়েছেন মহামান্য হাইকোর্ট। কারন এখানে মাল্টিমোডাল হাব (কেন্দ্র) নির্মাণের জন্য স্থানটি নির্বাচন করা হয়েছে।তাছাড়া  ভবনের নকশার অনুমোদন না নিয়ে ইতিমধ্যে রেলওয়ের ওই জমিতে বিপণিবিতান নির্মাণ করছিল কল্যাণ ট্রাস্ট।এ স্থিতাবস্থার আদেশের ফলে বিপণিবিতান নির্মাণ করা যাবে না।
এর আগে ‘সব আপত্তি উপেক্ষা করে রেলওয়ের সেই জমিতে বিপণিবিতান’ কোনো ধরনের অনুমোদন ছাড়াই নির্মান করছিলেন রেলওয়ে কল্যান ট্রাষ্ট। অথচ নারায়ণগঞ্জের মানুষের সহজ যাতায়াতের জন্য প্রকল্প নিতে বাংলাদেশ রেলওয়ের একটি জমি নির্ধারণ করা আছে অনেক বছর আগে থেকেই। কিন্তু মানুষের সেই সুবিধার কথা বিবেচনায় না নিয়ে, সেই জমিতে বিপণিবিতান তৈরি করছে বাংলাদেশ রেলওয়ে (কর্মচারী) কল্যাণ ট্রাস্ট।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

আটকে গেল না’গঞ্জে রেলওয়ে কল্যান ট্রাষ্টের বিপণিবিতান নির্মাণ কাজ

আপডেট সময় : ০৬:২৩:১১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৭ জুন ২০২৪

 

অনলাইন ডেস্ক।।

 

 

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন(নাসিক) এলাকায় রেলওয়ে স্টেশনের নিকটে, বাংলাদেশ রেলওয়ে (কর্মচারী) কল্যাণ ট্রাস্টের জমিতে বিপণি বিতান নির্মাণের কাজ চলমান ছিলো, তার দখল ও অবস্থানের ওপর স্থিতাবস্থা বজায় রাখতে নির্দেশ দিয়েছেন মহামান্য হাইকোর্ট।উভয়

এ স্থিতাবস্থা  রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে বিচারপতি নাইমা হায়দার ও বিচারপতি কাজী জিনাত হকের সমন্বয়ে গঠিত মহামান্য হাইকোর্ট বেঞ্চ গত ১৩ মে রুলসহ এ আদেশ জারি করেন। ফলশ্রুতিতে উক্ত স্থানে বিপণি বিতান নির্মাণের কাজ করা যাবে না বলে জানিয়েছেন রিট আবেদনকারীর আইনজীবী।

বিপণি বিতান নির্মাণ কার্যক্রমের বৈধতা নিয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের(নাসিক) পক্ষে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা(সিইও) রিটটি করেন।

জমিটি নারায়ণগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশনের ঠিক পশ্চিম পাশে।প্রায় সাড়ে তিন বিঘার মতো আয়তনের সেই জমিতে মাল্টিমোডাল হাব (কেন্দ্র) নির্মাণের কথা। অর্থাৎ সেটি হওয়ার কথা রেল, নৌ ও সড়কপথে চলাচলের একটি কেন্দ্র।
এ সময় আদালতে রিটের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী আহসানুল করিম, আইনজীবী সৈয়দা নাসরিন ও এম ফেরদৌস আল বসির। এছাড়াও রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত দাশ গুপ্ত ও সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল তৌফিক সাজাওয়ার।

হাইকোর্টের আদেশের বিষয় নিশ্চিত  জানিয়ে গতকাল মঙ্গলবার আইনজীবী সৈয়দা নাসরিন বলেন, নারায়ণগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশনের যে জায়গায় রেলওয়ে (কর্মচারী) কল্যাণ ট্রাস্ট বিপণিবিতান নির্মাণ করছে, সেই জায়গার অবস্থান ও দখলের ওপর উভয় পক্ষকে স্থিতাবস্থা বজায় রাখতে নির্দেশ দিয়েছেন মহামান্য হাইকোর্ট। কারন এখানে মাল্টিমোডাল হাব (কেন্দ্র) নির্মাণের জন্য স্থানটি নির্বাচন করা হয়েছে।তাছাড়া  ভবনের নকশার অনুমোদন না নিয়ে ইতিমধ্যে রেলওয়ের ওই জমিতে বিপণিবিতান নির্মাণ করছিল কল্যাণ ট্রাস্ট।এ স্থিতাবস্থার আদেশের ফলে বিপণিবিতান নির্মাণ করা যাবে না।
এর আগে ‘সব আপত্তি উপেক্ষা করে রেলওয়ের সেই জমিতে বিপণিবিতান’ কোনো ধরনের অনুমোদন ছাড়াই নির্মান করছিলেন রেলওয়ে কল্যান ট্রাষ্ট। অথচ নারায়ণগঞ্জের মানুষের সহজ যাতায়াতের জন্য প্রকল্প নিতে বাংলাদেশ রেলওয়ের একটি জমি নির্ধারণ করা আছে অনেক বছর আগে থেকেই। কিন্তু মানুষের সেই সুবিধার কথা বিবেচনায় না নিয়ে, সেই জমিতে বিপণিবিতান তৈরি করছে বাংলাদেশ রেলওয়ে (কর্মচারী) কল্যাণ ট্রাস্ট।