ঢাকা ০৯:৫৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নারায়ণগঞ্জে স্ত্রী হত্যা মামলার আসামী আরিফ গ্রেফতার

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৪:৪৯:৫৬ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১২ মে ২০২৪ ১২ বার পড়া হয়েছে

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট।।

 

নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলায় স্ত্রী হত্যা  মামলার আসামী কথিত ছাত্রলীগ নেতা আরিফ হোসেন (৩৮)কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শনিবার (১১ মে) বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে সিদ্ধিরগঞ্জের হীরাঝিল এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

জানা গেছে, গ্রেপ্তারকৃত আসামি পষান্ড স্বামী ছাত্রলীগ নেতা নামধারী আরিফ হেসেন(৩৮) বন্দর থানাস্থ দক্ষিন লক্ষনখোলা এলাকার সাহাবুদ্দিন মিয়ার ছেলে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, এর আগে গত ৮ জানুয়ারী দুপুরে বন্দর থানার ২৬৫, উইলসন রোডের কদমরসুল কলেজ সংলগ্ন পশ্চিমপাড়া আফতাবউদ্দিনের ভাড়া বাড়িতে এ আত্নহত্যার ঘটনা ঘটে।তার নিজ স্ত্রী নিহত গৃহবধূ শান্তা ইসলাম(২২) একই থানার ৭/১ কদম রসুল এলাকার নজরুল ইসলামের মেয়ে।

এ হত্যাকান্ডের বিষয়ে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই আরিফ পাঠান জানান, গত বছর বন্দর থানার দক্ষিন লক্ষনখোলাস্থ পাগলীর বাড়ী এলাকার শাহাবুদ্দিন মিয়ার ছেলে, আরিফ হোসেনের সাথে কদমরসুল কলেজ এলাকার নজরুল ইসলামের মেয়ে শান্তা ইসলামের বিয়ে হয়।

বিয়ের পর থেকে ঘাতক স্বামী-স্ত্রী উভয় ২৬৫ উইলসন রোড কদমরসুল পশ্চিম পাড়া আফতাব উদ্দিনের বাড়িতে ভাড়ায় বসবাস করতেন। বিয়ের কিছদিন যেতেই যৌতুক লোভী পাষুন্ড স্বামী যৌতুকের জন্য স্ত্রী শান্তা ইসলামকে চাপ দিতে থাকে।একসময় যৌতুক দিতে অস্বীকৃতি জানালে শান্তার ওপর নেমে আসে ভয়ংকর পরিনতি, মারধর সহ অমানুষিক নির্যাতন চালাতে থাকে ঘাতক স্বামী। এর ধারাবাহিকতায় গত ৮ জানুয়ারি দুপুরে গৃহবধূ শান্তা ইসলাম ফ্যানের সাথে গলায় ফাঁস লাগানো ঝুলন্ত নিথর দেহ ঝুলতে দেখা যায়। খবর পেয়ে বন্দর থানা পুলিশ নিহত শান্তার নিথর দেহ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করে। এ ঘটনার পর থেকে পাষুন্ড স্বামী আরিফ পলাতক ছিলো।

এ ঘটনায় নিহতের মা নুরবানু বেগম বাদী হয়ে নিহতের স্বামীসহ ৩ জনের নাম উল্লেখ্য করে বন্দর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ মামলার প্রধান আসামী শান্তার স্বামী কথিত ছাত্রলীগ নেতা আরিফ দীর্ঘ  ৫ মাস পলাতক থাকার পর শনিবার বিকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সিদ্ধিরগঞ্জের আবাসিক এলাকা হিরাঝিল থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

নারায়ণগঞ্জে স্ত্রী হত্যা মামলার আসামী আরিফ গ্রেফতার

আপডেট সময় : ০৪:৪৯:৫৬ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১২ মে ২০২৪

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট।।

 

নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলায় স্ত্রী হত্যা  মামলার আসামী কথিত ছাত্রলীগ নেতা আরিফ হোসেন (৩৮)কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শনিবার (১১ মে) বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে সিদ্ধিরগঞ্জের হীরাঝিল এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

জানা গেছে, গ্রেপ্তারকৃত আসামি পষান্ড স্বামী ছাত্রলীগ নেতা নামধারী আরিফ হেসেন(৩৮) বন্দর থানাস্থ দক্ষিন লক্ষনখোলা এলাকার সাহাবুদ্দিন মিয়ার ছেলে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, এর আগে গত ৮ জানুয়ারী দুপুরে বন্দর থানার ২৬৫, উইলসন রোডের কদমরসুল কলেজ সংলগ্ন পশ্চিমপাড়া আফতাবউদ্দিনের ভাড়া বাড়িতে এ আত্নহত্যার ঘটনা ঘটে।তার নিজ স্ত্রী নিহত গৃহবধূ শান্তা ইসলাম(২২) একই থানার ৭/১ কদম রসুল এলাকার নজরুল ইসলামের মেয়ে।

এ হত্যাকান্ডের বিষয়ে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই আরিফ পাঠান জানান, গত বছর বন্দর থানার দক্ষিন লক্ষনখোলাস্থ পাগলীর বাড়ী এলাকার শাহাবুদ্দিন মিয়ার ছেলে, আরিফ হোসেনের সাথে কদমরসুল কলেজ এলাকার নজরুল ইসলামের মেয়ে শান্তা ইসলামের বিয়ে হয়।

বিয়ের পর থেকে ঘাতক স্বামী-স্ত্রী উভয় ২৬৫ উইলসন রোড কদমরসুল পশ্চিম পাড়া আফতাব উদ্দিনের বাড়িতে ভাড়ায় বসবাস করতেন। বিয়ের কিছদিন যেতেই যৌতুক লোভী পাষুন্ড স্বামী যৌতুকের জন্য স্ত্রী শান্তা ইসলামকে চাপ দিতে থাকে।একসময় যৌতুক দিতে অস্বীকৃতি জানালে শান্তার ওপর নেমে আসে ভয়ংকর পরিনতি, মারধর সহ অমানুষিক নির্যাতন চালাতে থাকে ঘাতক স্বামী। এর ধারাবাহিকতায় গত ৮ জানুয়ারি দুপুরে গৃহবধূ শান্তা ইসলাম ফ্যানের সাথে গলায় ফাঁস লাগানো ঝুলন্ত নিথর দেহ ঝুলতে দেখা যায়। খবর পেয়ে বন্দর থানা পুলিশ নিহত শান্তার নিথর দেহ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করে। এ ঘটনার পর থেকে পাষুন্ড স্বামী আরিফ পলাতক ছিলো।

এ ঘটনায় নিহতের মা নুরবানু বেগম বাদী হয়ে নিহতের স্বামীসহ ৩ জনের নাম উল্লেখ্য করে বন্দর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ মামলার প্রধান আসামী শান্তার স্বামী কথিত ছাত্রলীগ নেতা আরিফ দীর্ঘ  ৫ মাস পলাতক থাকার পর শনিবার বিকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সিদ্ধিরগঞ্জের আবাসিক এলাকা হিরাঝিল থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।