ঢাকা ০৯:১৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

না’গঞ্জে খোঁজ মিললো বিজয়নগরের সেই ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীর

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৮:২৪:২৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪ ৩৩ বার পড়া হয়েছে

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট।।

 

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী প্রীতি খন্দকার হালিমার খোঁজ পেয়ে তাকে উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার(৩০ মে) সকালে নারায়ণগঞ্জের কাঁচপুর এলাকা থেকে তাকে উদ্ধার করে পুলিশ।

বিজয়নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসাদুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রীতি খন্দকারকে নারায়ণগঞ্জ থেকে উদ্ধার করে বিজয়নগরে আনা হচ্ছে। তবে  কীভাবে কী হয়েছে, মূল ঘটনা তাকে নিয়ে আসার পরই নিশ্চিত বলা যাবে।

এঘটনায় প্রীতি খন্দকারের স্বামী মাসুদ খন্দকার বলেন, ৫ জুন চতুর্থ ধাপে বিজয়নগর উপজেলা নির্বাচনে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এই নির্বাচনে তার স্ত্রী নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে পদ্মফুল প্রতীকে নির্বাচন করছেন। সার্ভার ত্রুটির কারণে প্রীতির মনোনয়ন জমা দিতে সমস্যা হওয়ার ফলে হাইকোর্ট থেকে প্রার্থিতা ফিরে পান তিনি।

গত মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার হরষপুর ইউনিয়নে ২ সহযোগী নিয়ে নির্বাচনি প্রচারে যান তিনি। হরষপুরের ঋষিপাড়ায় ঢুকে প্রচার করা অবস্থায় সহযোগী দুই নারী বাইরে আসেন, প্রীতি ভোটারদের সঙ্গে ভেতরে কথা বলছিলেন।এর ১০ /২০ মিনিট পার হলেও প্রীতি বের হচ্ছেন না দেখে তারা ভেতরে যান। তখন আর তারা প্রীতিকে খূজে পাচ্ছিলেন না। এরপর বিষয়টি সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ থানার ওসিকে জানানো হয়।

এ ঘটনায় প্রীতি খন্দকারের স্বামী মাসুদ খন্দকার সাধারণ ডায়েরি করেন। এতে তার স্ত্রীকে গুম করা হয়ে থাকতে পারে বলে জিডিতে অভিযোগ করেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

না’গঞ্জে খোঁজ মিললো বিজয়নগরের সেই ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীর

আপডেট সময় : ০৮:২৪:২৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট।।

 

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী প্রীতি খন্দকার হালিমার খোঁজ পেয়ে তাকে উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার(৩০ মে) সকালে নারায়ণগঞ্জের কাঁচপুর এলাকা থেকে তাকে উদ্ধার করে পুলিশ।

বিজয়নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসাদুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রীতি খন্দকারকে নারায়ণগঞ্জ থেকে উদ্ধার করে বিজয়নগরে আনা হচ্ছে। তবে  কীভাবে কী হয়েছে, মূল ঘটনা তাকে নিয়ে আসার পরই নিশ্চিত বলা যাবে।

এঘটনায় প্রীতি খন্দকারের স্বামী মাসুদ খন্দকার বলেন, ৫ জুন চতুর্থ ধাপে বিজয়নগর উপজেলা নির্বাচনে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এই নির্বাচনে তার স্ত্রী নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে পদ্মফুল প্রতীকে নির্বাচন করছেন। সার্ভার ত্রুটির কারণে প্রীতির মনোনয়ন জমা দিতে সমস্যা হওয়ার ফলে হাইকোর্ট থেকে প্রার্থিতা ফিরে পান তিনি।

গত মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার হরষপুর ইউনিয়নে ২ সহযোগী নিয়ে নির্বাচনি প্রচারে যান তিনি। হরষপুরের ঋষিপাড়ায় ঢুকে প্রচার করা অবস্থায় সহযোগী দুই নারী বাইরে আসেন, প্রীতি ভোটারদের সঙ্গে ভেতরে কথা বলছিলেন।এর ১০ /২০ মিনিট পার হলেও প্রীতি বের হচ্ছেন না দেখে তারা ভেতরে যান। তখন আর তারা প্রীতিকে খূজে পাচ্ছিলেন না। এরপর বিষয়টি সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ থানার ওসিকে জানানো হয়।

এ ঘটনায় প্রীতি খন্দকারের স্বামী মাসুদ খন্দকার সাধারণ ডায়েরি করেন। এতে তার স্ত্রীকে গুম করা হয়ে থাকতে পারে বলে জিডিতে অভিযোগ করেন।